শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:২২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
উর্গবাদী সংগঠন দেশে শান্তি বিনষ্টের চেষ্টা করছে: ওবায়দুল কাদের ৮০ হাজার কোটি টাকা খেলাপি শীর্ষ ২৫ ব্যাংকে: বাংলাদেশ ব্যাংক অর্থ পাচারকারীদের আইনের আওতায় আনতে হবে: হাইকোর্ট যুক্তরাষ্ট্র ইরাকে থেকে কূটনীতিকের সংখ্যা কমাল  দেশ চলছে শতভাগ ব্যক্তিতন্ত্রের ওপর: গয়েশ্বর চন্দ্র ‘টেক্সট ফর ইউ’ শিরোনামে হলিউড সিনেমায় প্রিয়াঙ্কা ১১ ডিসেম্বর মুক্তি পাচ্ছে ‘বিশ্বসুন্দরী’  প্রভাস তিন সিনেমায় নিচ্ছেন ৩০০ কোটি! রাজধানীতে ভিপি নূরের নেতৃত্বে মশাল মিছিল বার্সা উড়ছে মেসিকে ছাড়াই  প্রথম জয় বেক্সিমকো ঢাকার  নিরাময়ের বদলে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রগুলোতে চলে নির্যাতন পৃথিবীর মধ্যে সর্বোচ্চ খরচ বাংলাদেশের প্রতি কি.মি. রাস্তা নির্মাণে সিলেট এমসি কলেজে গণধর্ষণ: ৮ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট বিনামূল্যের পাঠ্যবই আটকা যাচ্ছে তিন সংকটে শনিবার থেকে অ্যান্টিজেন টেস্ট শুরু হচ্ছে করোনা: বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১৪ লাখ ৯৯ হাজার জলবায়ু পরিবর্তন ও মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা মোকাবিলায় কর্ম-পরিকল্পনার আহ্বান সায়মা ওয়াজেদের বিশ্ব এখন করোনার ভ্যাকসিন যুগে  মানসম্মত জীবনের সব আয়োজনে আধুনিক শহর এখন ভাসানচর

আজ ঢাবি শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলার রায় 

মুক্তকণ্ঠ২৪ ডেস্ক:

 

আজ রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলার রায়। রাষ্ট্রপক্ষ চায় একমাত্র আসামি মজনুর সর্বোচ্চ সাজা। এই মামলার রায় মাত্র ১৩ কার্যদিবস শুনানি শেষে ঘোষিত হতে যাচ্ছে।

 

গত ৫ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে চড়ে বন্ধুর বাসায় যাওয়ার পথে রাজধানীর কুর্মিটোলায় এলাকায় ধর্ষণের শিকার হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। ৩ ঘণ্টা আটকে রেখে নির্যাতন করা হয় ভুক্তভোগীকে।

 

এ ঘটনায় থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগীর বাবা, বিচার দাবিতে রাজপথে নামেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

 

৭২ ঘণ্টার মধ্যেই ভুক্তভোগীর মোবাইল বিক্রির সূত্র ধরে মজনুকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। ১৬ জানুয়ারি অপরাধ স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন আসামি মজনু। মামলার তদন্তভার দেয়া হয় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশকে। ১৬ মার্চ গোয়েন্দা পুলিশ আদালতে মজনুর বিরুদ্ধে চার্জশিট দিলে, ২৬ আগস্ট অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে আদালতে বিচার শুরু হয়।

 

বিচার চলাকালীন আদালতে বিভিন্ন সময় অদ্ভূত আর নেতিবাচক আচরণ করে আসামি মজনু। যার মধ্যে ছিলো সাক্ষ্য দিতে আসা ভুক্তভোগী ও সাক্ষীদের বিরক্ত করা, কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে হইচই করা, আদালত প্রাঙ্গণে হঠাৎ কান্নাজুড়ে দিয়ে পুলিশ সদস্যদের দায়িত্ব পালনে বাধা দেয়া কিংবা গ্রামের বাড়িতে যেতে দেয়ার আবদারও।

 

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আফরোজা ফারহানা আহমেদ অরেঞ্জ বলেন, ‘এই মামলাটা আসলে সন্দেহাতীতভাবে আমরা রাষ্ট্রপক্ষের পক্ষে প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি। আমরা আদালতের কাছে এই আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেছি।’

 

আসামিপক্ষের আইনজীবী রবিউল ইসলাম বলেন, ‘আমি আমার সাধ্যমত চেষ্টা করেছি। মজনু  কিছু ঘটনার মাধ্যমে এখানে সমস্যা সৃষ্টি করে সে যে এই ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত এটা থেকে বের হয়ে আসছে।’

 

আদালতে ভুক্তভোগীর আসামি মজনুকে চিহ্নিত করে সাক্ষ্য দেয়া, অপরাধ স্বীকার করে মজনুর জবানবন্দি আর ২০ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণসহ নানা আলামতের কথা তুলে ধরে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী প্রত্যাশা রায়ে মজনুকে দেয়া হবে সবোর্চ্চ সাজা।

 

 

 

মুক্তকন্ঠ২৪

নিয়মিত সকল সংবাদ পেতে মুক্তকন্ঠ২৪.কম এর ফেইসবুকে যুক্ত থাকুন

শেয়ার করুন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *