মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ০৪:৪৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
প্রযুক্তি উন্নয়নের হাতিয়ার, তাই অনুকরণের পরিবর্তে উদ্ভাবনে জোর দিতে হবে: রাষ্ট্রপতি চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে বাংলাদেশ নেতৃত্ব দেবে: সজীব ওয়াজেদ সুইস রাষ্ট্রদূতকে বাংলাদেশে আরও বিনিয়োগ বাড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর উর্গবাদী সংগঠন দেশে শান্তি বিনষ্টের চেষ্টা করছে: ওবায়দুল কাদের ৮০ হাজার কোটি টাকা খেলাপি শীর্ষ ২৫ ব্যাংকে: বাংলাদেশ ব্যাংক অর্থ পাচারকারীদের আইনের আওতায় আনতে হবে: হাইকোর্ট যুক্তরাষ্ট্র ইরাকে থেকে কূটনীতিকের সংখ্যা কমাল  দেশ চলছে শতভাগ ব্যক্তিতন্ত্রের ওপর: গয়েশ্বর চন্দ্র ‘টেক্সট ফর ইউ’ শিরোনামে হলিউড সিনেমায় প্রিয়াঙ্কা ১১ ডিসেম্বর মুক্তি পাচ্ছে ‘বিশ্বসুন্দরী’  প্রভাস তিন সিনেমায় নিচ্ছেন ৩০০ কোটি! রাজধানীতে ভিপি নূরের নেতৃত্বে মশাল মিছিল বার্সা উড়ছে মেসিকে ছাড়াই  প্রথম জয় বেক্সিমকো ঢাকার  নিরাময়ের বদলে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রগুলোতে চলে নির্যাতন পৃথিবীর মধ্যে সর্বোচ্চ খরচ বাংলাদেশের প্রতি কি.মি. রাস্তা নির্মাণে সিলেট এমসি কলেজে গণধর্ষণ: ৮ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট বিনামূল্যের পাঠ্যবই আটকা যাচ্ছে তিন সংকটে শনিবার থেকে অ্যান্টিজেন টেস্ট শুরু হচ্ছে করোনা: বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১৪ লাখ ৯৯ হাজার

তিন মাসে মুঠোফোনের ৬১ লাখ গ্রাহক বেড়েছে 

মুক্তকণ্ঠ২৪ ডেস্ক:

 

দেশে মুঠোফোনের ৬১ লাখ নতুন গ্রাহক বেড়েছে মাত্র তিন মাসেই। অবিশ্বাস্য হলেও একই সময়ে মুঠোফোনে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যাও ৭৫ লাখ বেড়েছে। দেশের অর্থনীতিতে করোনা সংকটের মধ্যেই টেলিকম খাতের এমন প্রবৃদ্ধিতে বইছে নতুন বাতাস।

গেল মার্চে দেশে যখন করোনা হানা দেয়, তখন মুঠোফোনের চার অপারেটরের গ্রাহক ছিলো ১৬ কোটি ৫৩ লাখ। ফোনে ইন্টারনেট ব্যবহার করছিলেন সাড়ে ৯ কোটি গ্রাহক। এরপরের তিন মাসে অপারেটররা গ্রাহক হারায় ৪১লাখ। আর ইন্টারনেট ব্যবহারকারী কমে দুই লাখ।

এরপর দীর্ঘ লকডাউনে সামাজিক যোগাযোগ, শিক্ষা আর দাপ্তরিক কার্যক্রম প্রায় পুরোটাই নির্ভরশীল হয়ে পরে ইন্টারনেটের উপর। পরিস্থিতি বিবেচনায় গ্রাহক ফেরাতে সর্বনিম্ন রেটে কথা বলা, ফ্রি টকটাইম, কমদামে ইন্টারনেট’সহ নানা অফার দেয়া শুরু করে অপারেটররাও। ফলে জুনের পর থেকে পাল্টে যাচ্ছে পরিস্থিতি।

বিটিআরসি বলছে, জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর এই তিনমাসেই মুঠোফোন সংযোগ বেড়েছে ৬১ লাখ আর ইন্টারনেট ব্যবহারকারী বেড়েছে ৭৫ লাখ। তবে, নতুন টাওয়ার নির্মাণ বন্ধ, আর প্রয়োজনীয় তরঙ্গের অভাবে, এমন ইতিবাচক অবস্থান ধরে রাখা নিয়ে সংশয়ে অপারেটররা।

বিটিআরসি’র তথ্যে দেখা যায়, গেল মার্চে মোবাইল সংযোগ ছিল ১৬ কোটি ৫৩ লাখ আর মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহকের সংখ্যা ছিল ৯ কোটি ৫১ লাখ। এরপরের মাসে এই সংখ্যা ছিল যথাক্রমে ১৬ কোটি ২৯ লাখ ও ৯ কোটি ৩১ লাখ। মে-তে মোবাইল সংযোগ আরও কমে ১৬ কোটি ১৫ লাখে নেমে এলেও মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহক বেড়ে দাঁড়ায় ৯ কোটি ৪০ লাখে। জুনে ১৬ কোটি ১২ লাখ মোবাইল সংযোগ আর ৯ কোটি ৪৯ লাখ মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহক, জুলাই-তে ১৬ কোটি ৪২ লাখ আর ৯ কোটি ৭৮ লাখ, আগস্টে ১৬ কোটি ৬০ লাখ আর ৯ কোটি ৯৬ লাখ, সেপ্টেম্বরে ১৬ কোটি ৭১ লাখ ও ১০ কোটি ২৪ লাখে দাঁড়ায় মোবাইল সংযোগ মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহক সংখ্যা।

যদিও নিয়মতান্ত্রিক জটিলতায় এসব সংকটের সমাধান হচ্ছে না এখনই জানিয়ে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন- বিটিআরসি বলছে, কমমূল্যে তরঙ্গ বরাদ্দের কোন সুযোগ নেই তাদের হাতে।

সংস্থাটির চেয়ারম্যান জহুরুল হক বলেন, প্রথম অকশনে (নিলাম) যে দাম উঠেছিল এখন যে কিনবে তাকে সেই দামেই কিনতে হবে। দাম কমানোর সুযোগ নাই। তবে সরকার চাইলে তা করতে পারে।

গ্রাহক অনুপাতে প্রত্যাশিত সেবা প্রদানে ৭৫ মেগাহার্টজ তরঙ্গ দরকার প্রত্যেকটি অপারেটরের। যদি তাদের হাতে আছে মাত্র অর্ধেক।

বাংলালিংক’র চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান জানান, এসময়ে বেশ কিছু ডিজিটাল প্রোডাট টফি, সেলফকেয়ার অ্যাপের ব্যবহার বেড়েছে।

রবির করপোরেট ও রেগুলেটরি চীফ শাহেদ আলম বলেন, সরকার এই বিষয়টা গুরুত্ব দিয়ে দেখবেন এবং দ্রুততম সময়ে যেন সাশ্রয়ী মূল্যে স্পেক্ট্রাম দেয়া হয়। তা না হলে গ্রাহক চাহিদা যত বাড়ছে সেভাবে আমাদের সক্ষমতা থাকছে না। এতে গ্রাহক সেবার মান কমে যাচ্ছে।

 

 

 

 

মুক্তকন্ঠ২৪

নিয়মিত সকল সংবাদ পেতে মুক্তকন্ঠ২৪.কম এর ফেইসবুকে যুক্ত থাকুন

শেয়ার করুন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *