বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:২১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
হোয়াইট হাউজে ট্রাম্পের ক্ষমার জন্য ঘুষ: যুক্তরাষ্ট্রে তদন্ত শুরু আমাদের গুরুদায়িত্ব ঢাকাবাসীকে জলাবদ্ধতা থেকে মুক্ত করা: মেয়র তাপস এরদোয়ান ঢাকা সফরে সম্মতি দিয়েছেন ৬১ পৌরসভা নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা: নির্বাচন কমিশন শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়াম পরিদর্শন করলেন ক্যারিবীয় প্রতিনিধি দল হোয়াটমোরের সেরা টেস্ট একাদশে সাকিব আল হাসান লিভারপুল গ্রুপ সেরা হয়ে শেষ ষোলোতে  বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিক উল্ল্যাহ হত্যা মামলায় ৭ জনের মৃত্যুদণ্ড বাংলাদেশ আগামী বছর আয়োজন করবে ‘বিশ্ব শান্তি সম্মেলন’   বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য আঙ্কারায় এবং ঢাকায় হবে আতাতুর্কের ভাস্কর্য  দুর্যোগে বিএনপির ভূমিকা কী, জাতি জানতে চায়: ওবায়দুল কাদের করোনাভাইরাস : দেশে আরও ৩৮ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ২১৯৮ বিশ্বের প্রথম যুক্তরাজ্যে করোনার টিকার অনুমোদন নভেম্বরেও ৪১ শতাংশ বেড়েছে রেমিট্যান্স দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে মোবাইল নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর বিশ্বব্যাপী করোনায় ৪০ শতাংশ বেড়েছে হতদরিদ্র : জাতিসংঘ বিদ্যা ফিরিয়েছেন মন্ত্রীর আমন্ত্রণ, সিনেমার শুটিং গেলো আটকে বাংলাদেশে ম্যারাডোনাকে নিয়ে গান আমিরের সঙ্গে তর্কে জড়ানোয় আফ্রিদি শাসালেন আফগান পেসারকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ: ভারত থেকে সরে যেতে পারে 

সরকার দেশের অর্থনীতিতে নারীর গৃহস্থালির সেবাকাজকে খাত হিসেবে স্বীকৃতি দিতে যাচ্ছে

মুক্তকণ্ঠ২৪ ডেস্ক:

নারীরা দৈনন্দিন সংসারে যে শ্রম দিয়ে থাকেন তা অদৃশ্য শ্রম হিসেবেই থেকে যায়। দেশের অর্থনীতিতে এ শ্রমের কোন মূল্যায়ন না থাকায় নারীরা বঞ্চিত হচ্ছেন প্রাপ্য সম্মান থেকে। তাই গবেষকরা মনে করেন নারীর এই অদৃশ্য শ্রমকে জাতীয় আয়ে অর্ন্তভুক্ত করা দরকার। তবে শিগগিরই একে খাত হিসেবে স্বীকৃতি দেবার কথা জানিয়েছে সরকার।

২০১২ সালে পরিসংখ্যান ব্যুরোর সময় ব্যবহার জরিপ বলছে, কর্মজীবী নন এমন নারীরা ঘরের কাজে দিনে ৬ দশমিক ২ ঘন্টা সময় ব্যয় করেন। আর পুরুষরা মাত্র ১ দশমিক ২ ঘন্টা সময় ব্যয় করেন। অথচ নারীর অদৃশ্য এই শ্রমের ঠাঁই মেলে না অর্থনীতির হিসাবের খাতায়।

গাইবান্ধা ও লালমনিরহাটে বেসরকারি সংস্থা এ্যাকশন এইড বাংলাদেশ পরিচালিত এক গবেষণায় দেখা গেছে, নারীরা ৪ দশমিক ৬ শূন্য ঘন্টা গৃহস্থালির কাজে সময় ব্যয় করলেও সেখানে পুরুষ কাজ করেন মাত্র ১ দশমিক ১ সাত ঘন্টা।

এ্যাকশন এইড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ কবির বলেন,কাঠামোগত,নীতিগত সুযোগ সুবিধার জায়গা থেকে বিনিয়োগের জায়গা থেকে আমাদের মাথায় থাকতে হবে যে আমরা নারীর কাজকে মূল্যায়ন করবো এবং স্বীকৃতি দিব।

অর্থনীতিবিদদের পরামর্শ, আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত পদ্ধতিতে শ্রমশক্তি জরিপের মাধ্যমে সরকার নারীর গৃহস্থালির সেবামূলক কাজের মূল্যায়ন করতে পারে।

তবে নারীর এই কাজকে মূল্যায়িতক করে জাতীয় আয়ে যোগ করার উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে সরকার। পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, আমরা স্বীকার করি এটা গুরুত্বপুর্ন কাজ। আমার ধারণা অতি শীঘ্রই এটি খাত হিসেবে স্বীকৃতি পাবে।আমি আমার অবস্থান থেকে সহায়তা করবো। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সবার মতামত নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

বেসরকারি সংস্থা সিপিডির এক গবেষণা বলছে, জিডিপিতে নারীর ভূমিকা ২০ শতাংশ যা মাত্র ১৩ থেকে ২২ শতাংশের হিসাব। বাকি ৭৮ থেকে ৮৭ শতাংশ কাজের বিনিময় মূল্য না থাকায় ওই কাজের হিসাব জিডিপিতে যোগ হয় না। তা যোগ করা হলে জিডিপিতে নারীর অবদান হতো পুরুষের সমান।

 

 

 

 

মুক্তকন্ঠ২৪

নিয়মিত সকল সংবাদ পেতে মুক্তকন্ঠ২৪.কম এর ফেইসবুকে যুক্ত থাকুন।

শেয়ার করুন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *