রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০৪:৩৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
শ্রমিকদের জন্যই সাময়িকভাবে গণপরিবহন চালু: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কাল ঢাকায়, ৭ আগস্ট দেশজুড়ে অক্সফোর্ডের দ্বিতীয় ডোজ মালবাহী ট্রেন চলাচল শুরু চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রুটে কারখানা খোলায়  সংক্রমণ আরও বাড়ার শঙ্কা স্বাস্থ্যমন্ত্রীর এডিস নিধনে ডিএসসিসির অভিযান, জরিমানা সরকার কৃষকদের লাভবান করতে ভর্তুকি দিচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী সবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রশংসা করা দরকার: মোমেন সপ্তাহে কোটির বেশি টিকা দেওয়ার টার্গেট গার্মেন্টসে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ হওয়ার আশাবাদ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সাংসদ আলী আশরাফের মৃত্যুতে শোক প্রধানমন্ত্রীর সাংসদ আলী আশরাফের মৃত্যুতে শোক রাষ্ট্রপতির অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ শুরু কাল–পরশু অক্সফোর্ডের টিকার দ্বিতীয় চালান আসলো জাপান থেকে অস্ট্রিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এপিজির সভাপতি বিদেশিদের শেয়ারবাজারে উৎসাহিত করতে ’রোড শো’ অনুমোদনহীন আইপি টিভির হলে ব্যবস্থা: তথ্যমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়নি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী লক্ষ্মীপুরে জেলা শিক্ষা অফিসারের সচেতনতা ক্যাম্পেইন, ৫০০০ মাস্ক বিতরণ শ্রমিকদের এখন কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয় লকডাউন চলমান রাখার সুপারিশ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের

হারারেতে বড় জয় টাইগারদের

স্পোর্টস ডেস্ক:

 

হারারে টেস্টে রোমাঞ্চের অবসান হলো। শেষ দিনে জিম্বাবুয়ের প্রতিরোধ ভাঙ্গলো টাইগাররা। সফরের একমাত্র টেস্টে মুমিনুল বাহিনী জয় পেল ২২০ রানে।

 

জিম্বাবুয়ের চেষ্টা ছিল প্রতিরোধ গড়ে ম্যাচটিকে ড্রয়ে গড়ানো। ম্যাচে ৪৭৭ রানের রেকর্ড করে জেতা মূলত তাদের পক্ষে ছিল অসম্ভবই। ফলে, ব্যাটিং পিচে  স্বাগতিকদের চেষ্টা অন্তত ড্র। কিন্তু, বাংলাদেশের কার্যত হারের সম্ভাবনা ছিল না, তা-ই তো এই টেস্টের শেষের দিকে এসে নির্ভারই চিল সফরকারীরা।

 

স্বাগতিকেরা শেষ তিন উইকেটে ৩৪.৩ ওভার খেলেছে। শেষ দিন তাদের জয়ের জন্য দরকার ছিল ৩৭৭ রান, বিপরীতে হাতে উইকেট ছিল ৭ টি। যা কার্যত যেকোনো পিচেই কঠিন লক্ষ্য।  আর জিম্বাবুয়েকে জিততে হলে করতে হতো রেকর্ডও। তাই, ম্যাচের শেষ প্রান্ত এসে ড্রয়ের লক্ষ্যও অর্জন হয়নি দলটির।

 

পঞ্চম দিনে হারের দ্বারপ্রান্তে গিয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন আগের দিন ব্যাটিংয়ে নামা ডোনাল্ড তিরিপানো। যাকে পেয়েছেন তাকে সাথে নিয়ই লড়েছেন তিনি।  এবাদত  হোসেনের শিকার হওয়ার পূর্বে মাটি কামড়ে থাকা তিরিপানো করেছেন ১৪৪ বলের বিপরীতে ৫২ রান।

 

এরপর  অবশ্য জয়ের জন্য বাংলাদেশকে আর অপেক্ষা করতে হয়নি। রিচার্ড এনগারাভাকে ১০ রানে বোল্ড করেন মিরাজ। ফলে, ব্লেসিং মুজারাবানি অপরাজিত থাকে ৩০ রানে।

 

সফরকারী বোলারদের মধ্যে পেসার তাসকিন ও স্পিনার মিরাজ নিয়েছেন সমান ৪ টি করে উইকেট।  বাকি দুই উইকেটের একটি সাকিব ও অন্যটি শিকার করেন এবাদত হোসেন।

 

আগের দিন ডোনাল্ড তিরিপানো ও ডিওন মায়ার্স ১৮ ও ৭ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন। ম্যাচের পঞ্চম দিন রান করতে পারেননি মায়ার্স। এদিন ৮ রান নিয়ে ২৬ রানে আউট হন তিনি।

 

মায়ার্সের উইকেট শিকারী মেহেদীর দ্বিতীয় শিকার হন তিমিসেন মারুমা। যিনি কোন রান করতে পারেননি। এরপর রয় কাইয়া ৫ বলে এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়ে শূন্য রানেই ফিরেন প্যাভিলিয়নে। এবার বোলার তাসকিন আহমেদ।

 

এরপর তিরিপানোর সাথে প্রতিরোধের চেষ্টা করেও সফল হতে পারেননি রেগিস চাকাবা। তাসকিনের বলে মাত্র ১ রানে বোল্ড হন তিনি। পরে,  ৭ উইকেটে ১৭৬ রানে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যায় স্বাগতিকরা।

 

এর পর বাংলাদেশকে উইকেটের অপেক্ষায় রাখা জুটি ভাঙ্গে ভিক্টর নিয়াচির উইকেটের মাধ্যমে। ১৫ ওভারে ৩৪ রান করে জয়ের অপেক্ষা বাড়াতে থাকে তারা।

নিয়াচি ফেরার পর মুজারাবাকে নিয়ে ১৩ ওভারের বেশি খেলেন তারা ।কিন্তু, আর সম্ভব হয়নি, এবাদতের শিকার হয়ে ৯৪.৪ ওভারে ২৫৬ রানে  অলআউট হয় জিম্বাবুয়ে। ফলে, ২২০ রানের বড় জয় পায় মুমিনুলের টাইগার বাহিনী।

 

 

শেয়ার করুন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *