May 19, 2022, 4:34 am

কাতালান ক্লাবে ফিরতে চান সুয়ারেজ

স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনায় সোনালী অধ্যায় কাটিয়ে দুই বছরের ‍চুক্তিতে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদে আছেন উরুগুয়ের তারকা ফুটবলার লুইস সুয়ারেজ। চলতি ২০২১-২২ মৌসুমের পরেই শেষ হবে ক্লাবটির সঙ্গে তার চুক্তির মেয়াদ। তারপরই তিনি ফ্রি এজেন্ট হয়ে যাবেন। আর এরপরেই পুনরায় কাতালান ক্লাব বার্সেলোনায় ফিরতে চান সুয়ারেজ। সেটি নিজের বেতন কমিয়ে হলেও। এমনটাই বলছে স্প্যানিশ গণমাধ্যমগুলো।

২০২০-২১ মৌসুমের শুরুতে বার্সেলোনা থেকে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদে পাড়ি জমান লুইস সুয়ারেজ। সেই সময়কার কাতালান কোচ রোন্যাল্ড কোম্যান জানিয়েছিলেন, তার ভবিষ্যত পরিকল্পনায় নেই সুয়ারেজ।

তবে স্পেনের আরেক ক্লাব অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদে গিয়ে ঠিকই নিজেকে প্রমাণ করেছেন সুয়ারেজ। দুই মৌসুমেই অ্যাথলেটিকোর ফরোয়ার্ড লাইনের অন্যতম ভরসা হয়েছেন তিনি। চলতি ২০২১-২২ মৌসুমে তার পা থেকে ৩২ ম্যাচে এসেছে ২১ গোল।

এই মৌসুম পরেই শেষ হবে অ্যাথলেটিকোর সঙ্গে সুয়ারেজের চুক্তির মেয়াদ। অ্যাথলেটিকোর সঙ্গে নতুন করে চুক্তির মেয়াদ বাড়াবেন এমন সম্ভাবনাও নেই বলে জানাচ্ছে বিভিন্ন ইউরোপিয়ান গণমাধ্যম। এমন সময়ই ফ্রি এজেন্ট হিসেবে বার্সেলোনায় ফিরতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন তিনি। আর এর জন্য নিজের বেতনও কমাতে রাজি এই উরুগুইয়ান।

এই বিষয়ে স্প্যানিশ বিভিন্ন গণমাধ্যম জানিয়েছে, সুয়ারেজে ইচ্ছার বিষয়ে জানে বার্সেলোনা কর্তৃপক্ষ। তবে এখনই এই বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে রাজি নয় ক্লাবটি। নিজেদের পরিস্থিতি বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নিবে কাতালানরা। নির্ভরযোগ্য সূত্র ধরে মুন্দো দেপোর্তিভো জানাচ্ছে, কাতালান দলটি অপেক্ষায় রেখেছে তাদের ক্লাবের তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতাকে।

বর্তমানে ক্লাবটি স্ট্রাইকারের সন্ধানে আছে। গুঞ্জন আছে রবার্ট লেভান্ডভস্কি, আলভারো মোরাতা, মোহামেদ সালাহ, রাফিনিয়াদের কাউকে দলে ভেড়ানোর। সে চেষ্টা সফল না হলে তবেই সুয়ারেজের কথা ভাববে বার্সা, ধারণাটা এমনই।

বার্সেলোনার হয়ে সুয়ারেজ খেলেছেন ছয় মৌসুম। ২০১৪ সালে লিভারপুল থেকে যোগ দিয়েছিলেন ক্লাবটিতে। এরপর তিনি এখানে খেলেছেন ২৮৩টি ম্যাচ, গোল করেছেন ১৯৮টি। এই সময়ে ৯৭ বার গোলে সহায়তা করেছেন এই ফরওয়ার্ড।

তাতেই রিভালদো, স্যামুয়েল ইতো, লাজলো কুবালা, হোসেপ সামিতিয়েরদের পেছনে ফেলে তিনি বনে গিয়েছিলেন ক্লাবটির তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা। তার সামনে আছেন কেবল লিওনেল মেসি আর সেজার রদ্রিগেজ। মেসি-নেইমারকে সঙ্গে গড়ে তুলেছিলেন অপ্রতিরোধ্য এক আক্রমণভাগ এমএসএন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.