বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:০১ অপরাহ্ন

কাল থেকে শুরু ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম

প্রায় তিন বছর পর কাল থেকে শুরু হচ্ছে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম। এবার ৮৪ লাখ নতুন ভোটার অন্তর্ভুক্তির টার্গেট নির্বাচন কমিশনের। ২০০৭ সালের জানুয়ারির আগে যাদের জন্ম তারাই তালিকাভুক্ত হবেন এই হালনাগাদে। কমিশন বলছে, রোহিঙ্গা ও ভুয়া ভোটার ঠেকাতে নেয়া হবে বিশেষ সতর্কতা।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর ২০১৯ সালে হয় সবশেষ ভোটার তালিকা হালনাগাদ। ঐ হালনাগাদের পর বর্তমানে দেশে ভোটার আছে এগারো কোটি ৩২ লাখ। করোনার কারণে গেলো দু’বছর আর হয়নি হালনাগাদ কার্যক্রম।

এ অবস্থায় দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখেই হালনাগাদের উদ্যোগ নির্বাচন কমিশনের। চার ধাপের এই কার্যক্রমের প্রথম পর্যায়ে শুরু হবে ১৪০টি উপজেলায়। পহেলা জানুয়ারি ২০০৭ সালের আগে যাদের জন্ম তাদের তথ্যও সংগ্রহ করবে কমিশন। শুধুমাত্র বয়স ১৮ পূর্ণ হলেই তারা যুক্ত হবে ভোটার তালিকায়।

নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বলেন, ২০২৩ সাল থেকে আমরা নিচ্ছি হলো কারেন্ট ইয়ার প্লাস দুই বছর আগাম। ২০০৭ সালের ১ জানুয়ারির আগে যাদের জন্ম তাদের তালিকাটা প্রকাশ করা হবে ২০২৫ সালের ২ মার্চ। এক্ষেত্রে আমরা এ বছর নিচ্ছি কিন্তু আগামী বছর নেব না তথ্য।

তবে এর আগে যাদের বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হয়েছে কিন্তু ভোটার হননি তদন্ত করে তাদেরকে তালিকাভুক্ত করবে ইসি। এবার মৃত ব্যক্তিদের ভোটার তালিকা থেকে বাদ দিতে বিশেষ সতর্কতার কথা বলছে কমিশন।

নির্বাচন কমিশনার মো. আলমগীর বলেন, যারা ১৫ বছরের রয়েছে তাদেরও তথ্য নিয়ে রেখেছি অ্যাডভান্সড। অতএব বাদ পড়ার কোনও সুযোগ নেই। একটাই শুধু যারা মারা গেছেন তাদের তথ্যটা আমাদের দেশের বাস্তবতা হলো তথ্যটা প্রোপারলি আমাদের অফিসে কমিনিকেট করে না।

বিভিন্ন সময় ভোটার তালিকায় রোহিঙ্গা অন্তর্ভুক্তি নিয়ে নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে অতীতের নির্বাচন কমিশনগুলো। তাই এবারের হালনাগাদে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম অঞ্চলে হালনাগাদ কার্যক্রমে বিশেষ গুরুত্ব দেবে কমিশন।

নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বলেন, কোনও রোহিঙ্গা যাতে হালনাগাদ ভোটার তালিকায় অন্তর্ভূক্ত না হতে পারে সে জন্য আমরা চারটা জেলার ৩২ উপজেলাকে বিশেষ এলাকা হিসেবে ঘোষণা করেছি। বিশেষ এলাকার জন্য বিশেষ কমিটি আছে। সেখানে সে কমিটিতে আমাদের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধিরা আছে, র‌্যাব, বিজিবি, সেনাবাহিনী এসকল সংস্থার প্রতিনিধিরা আছেন

প্রায় ৮৪ লাখ ভোটার অন্তর্ভুক্তির টার্গেট নিয়ে শুরু হচ্ছে এবারের হালনাগাদ কার্যক্রম।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *