রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৯:৪৯ পূর্বাহ্ন

সিজনাল জ্বরে ভুগছেন বেগম খালেদা জিয়া

সিজনাল জ্বরে ভুগছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তাঁর ব্যক্তিগত কর্মকর্তারা বলছেন, জ্বরের মাত্রা খুব বেশি না। উনি মোটামুটি সুস্থ আছেন। তবে ম্যাডাম রাজি হলে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য হাসপাতালে নেওয়া হতে পারে।

রবিবার (২২ মে) খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার বিষয়ে ব্যক্তিগত সচিব এবি এম আব্দুস সাত্তার সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, আমিও আপনার মতো শুনেছি ম্যাডামের জ্বরের বিষয়টি। তবে চিকিৎসকরা এখন পর্যন্ত এই বিষয়ে আমাকে কিছু জানায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক খালেদা জিয়ার আরেক কর্মকর্তা বলেন, তাপমাত্রা একটু এদিক-সেদিক হলে উনার মতো বয়সীদের শরীরে জ্বর আসাটাই স্বাভাবিক। এটা সিরিয়াস কিছু না। সিজনাল জ্বর।

তিনি আরও বলেন, ম্যাডাম রাজি হলে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে তাকে স্বাস্থ্য পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য হাসপাতালে নেওয়া হতে পারে। যেটা আগেও করা হয়েছিলো।

খালেদা জিয়া দুর্নীতির অভিযোগে দীর্ঘদিন কারাবন্দি থাকার পর করোনার মহামারির মধ্যে ২০২০ সালের ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল হাসপাতালে থেকে ছয় মাসের জন্য মুক্তি পান খালেদা জিয়া। এরপর একাধিকবার তাঁর মুক্তির মেয়াদ বাড়ায় সরকার। এ সময়ের মধ্যে তিন দফায় প্রায় ৬ মাস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। কারামুক্ত হওয়ার পর থেকে খালেদা জিয়া গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় আছেন।

সিজনাল জ্বরে ভুগছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তাঁর ব্যক্তিগত কর্মকর্তারা বলছেন, জ্বরের মাত্রা খুব বেশি না। উনি মোটামুটি সুস্থ আছেন। তবে ম্যাডাম রাজি হলে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য হাসপাতালে নেওয়া হতে পারে।

রবিবার (২২ মে) খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার বিষয়ে ব্যক্তিগত সচিব এবি এম আব্দুস সাত্তার সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, আমিও আপনার মতো শুনেছি ম্যাডামের জ্বরের বিষয়টি। তবে চিকিৎসকরা এখন পর্যন্ত এই বিষয়ে আমাকে কিছু জানায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক খালেদা জিয়ার আরেক কর্মকর্তা বলেন, তাপমাত্রা একটু এদিক-সেদিক হলে উনার মতো বয়সীদের শরীরে জ্বর আসাটাই স্বাভাবিক। এটা সিরিয়াস কিছু না। সিজনাল জ্বর।

তিনি আরও বলেন, ম্যাডাম রাজি হলে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে তাকে স্বাস্থ্য পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য হাসপাতালে নেওয়া হতে পারে। যেটা আগেও করা হয়েছিলো।

খালেদা জিয়া দুর্নীতির অভিযোগে দীর্ঘদিন কারাবন্দি থাকার পর করোনার মহামারির মধ্যে ২০২০ সালের ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল হাসপাতালে থেকে ছয় মাসের জন্য মুক্তি পান খালেদা জিয়া। এরপর একাধিকবার তাঁর মুক্তির মেয়াদ বাড়ায় সরকার। এ সময়ের মধ্যে তিন দফায় প্রায় ৬ মাস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। কারামুক্ত হওয়ার পর থেকে খালেদা জিয়া গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় আছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.