সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১১:৪৬ অপরাহ্ন

মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে: বাংলাদেশ ব্যাংক গভর্নর

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বলেছেন, বর্তমানে বড় চ্যালেঞ্জ মূল্যস্ফীতি। এ প্রবণতা নিয়ন্ত্রণে সব ব্যাংককে এগিয়ে আসতে হবে। শনিবার (২৮ মে) রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংকের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান।

সামাজিক দায়বদ্ধতা কার্যক্রমের (সিএসআর) আওতায় ২০১৯ সালে উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ২০০ মেধাবী শিক্ষার্থীকে উচ্চশিক্ষার জন্য বৃত্তি দেয় আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফজলে কবির।

তিনি বলেন, দেশে ভোগ্যপণ্যের দাম বেড়েই চলেছে। নিত্যপণ্য কিনতে নাভিশ্বাস উঠছে সাধারণ মানুষের। যার প্রভাবে মূল্যস্ফীতি বৃদ্ধি পেয়েছে। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে লাফিয়ে বাড়ছে এটি। অর্থনীতিকে স্থিতিশীল রাখতে তাই মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণের বিকল্প নেই। এজন্য সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি ব্যাংকগুলোকেও এগিয়ে আসতে হবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর বলেন, সরকারি হিসাবে চলতি অর্থবছরে মূল্যস্ফীতির যে সীমা নির্ধারণ হয়েছিল, বাস্তবে তা সময়ের আগেই অতিক্রম করেছে। ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রাক্কলিত মূল্যস্ফীতি ছিল ৫ দশমিক ৩০ শতাংশ, বর্তমান যা ৬ দশমিক ১৭ শতাংশ। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে আয়-ব্যয়ের মধ্যে সমন্বয় করতেই নাকাল জনসাধারণ।

ফজলে কবির বলেন, মূল্যবৃদ্ধির প্রভাব মোকাবিলায় ইতোমধ্যে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। সেগুলো কার্যকর করতে সব বাণিজ্যিক ব্যাংককে এগিয়ে আসতে হবে।

তিনি বলেন, জ্বালানি পণ্যের দামই সার্বিক মূল্যস্ফীতিকে সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত করে। আর ডলার সংকট মোকাবেলায় সবার সহযোগিতা দরকার।

গভর্নর বলেন, ‘২০২০ সালে আমাদের করোনা মহামারি চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হয়েছে। সেসময়ও ব্যাংকের কার্যক্রম সচল রাখতে হয়েছে। ফলে বেশ কিছু ক্ষতি হয়েছে। এসময়ে বাংলাদেশ ব্যাংকসহ মোট ১৮৯ জন ব্যাংকার মারা গেছেন।’

ফজলে কবির বলেন, ‘এখনও করোনা মহামারি চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হচ্ছে আমাদের। সেজন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক কাজ করে যাচ্ছে। ব্যাংকগুলোকে সবধরনের সহযোগিতা করছে। আগামীতেও এ সহায়তা অব্যাহত থাকবে। এই পর্যায়ে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে সব ব্যাংককে এগিয়ে আসতে হবে।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান সেলিম রহমান। এসময় ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও ফরমান আর চৌধুরী ছাড়াও পরিচালনা পর্ষদের সদস্য, ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা ও অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.